রাজশাহী কলেজের অনুষদ ও বিভাগ

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে জানুনআসসালামু আলাইকুম, সুপ্রিয় পাঠক রাজশাহী কলেজের অনুষদ ও বিভাগ এবং রাজশাহী কলেজের গ্রন্থাগার সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে চাইলে আপনি আমাদের এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ মনোযোগ দিয়ে পড়ুন।রাজশাহী কলেজের অনুষদ ও বিভাগ

কেননা আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন রাজশাহী কলেজের কোন কোন অনুষদে কয়টি বিভাগ রয়েছে ও রাজশাহী কলেজের গ্রন্থাগার সহ বিস্তারিত তথ্য।
সূচিপত্রঃ রাজশাহী কলেজের অনুষদ ও বিভাগ

উপস্থাপনা

আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা আপনাকে জানাতে চলেছি রাজশাহী কলেজের অনুষদ ও বিভাগ সম্পর্কে, রাজশাহী কলেজের গ্রন্থাগার সম্পর্কে, রাজশাহী কলেজের ইতিহাস ও পটভূমি সম্পর্কে, রাজশাহী কলেজ কবে স্থাপন করা হয় এবং রাজশাহী কলেজের অবস্থান কোথায় সহ রাজশাহী কলেজের সকল তথ্য। তাই রাজশাহী কলেজ সম্পর্কে জানার জন্য আমাদের আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়ুন।

রাজশাহী কলেজের ইতিহাস ও পটভূমি

১৮২৮ সালে বাউলিয়া ইংলিশ স্কুল প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে শিক্ষানগরী হিসেবে রাজশাহী মহানগরীর গোড়াপত্তন হয়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি পূর্ব বাংলায় আধুনিক শিক্ষার ইতিহাসে পথপ্রদর্শক হয়ে উঠেছিল সে সময়। সাধারণত ইংরেজি শিক্ষার প্রতিস্থাপনা ও প্রসার করার লক্ষ্যে সে সময় রাজশাহীতে অবস্থিত ও কর্মরত ইংরেজ কর্মকর্তা ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের প্রচেষ্টায় প্রতিষ্ঠা করা হয় সেই ইংলিশ স্কুলটি।

সেই ক্ষুদ্র বাউলিয়া ইংলিশ স্কুল ১৮৩৬ সালে প্রাদেশিক সরকার জাতীয়করণ করলে বাউলিয়া ইংলিশ স্কুলটি রাজশাহী জেলা স্কুল নামে পরিচিতি লাভ করে। বর্তমানে যেটি রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুল হিসেবে পরিচিত। সে সময় স্কুলের ছাত্রদের উচ্চতর শিক্ষার জন্য কলেজ প্রতিষ্ঠার প্রয়োজনীয়তা দেখা দেয়।
যার জন্য রাজশাহী অঞ্চলের অধিকাংশ বিশিষ্ট নাগরিকদের সম্মতি ও প্রচেষ্টার প্রেক্ষিতে ১৮৭৩ সালে জেলা স্কুলকে মর্যাদা দেওয়া হয় উচ্চ মাধ্যমিক কলেজের। এবং তৎকালীন সময়ে ৫ জন হিন্দু ও ১ জন মুসলমান ছাত্র নিয়ে চালু করা হয়েছিল উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণীর সমমানের এফ.এ কোর্স। ১৮৭৮ সালে সেই কলেজ কে প্রথম গ্রেট মর্যাদা দেয়া হয়।

তারপর রাজশাহী কলেজ নামকরনের সাথে সাথে একে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত করে সেই কলেজে বি.এ কোর্স চালু করা হয়। পাশাপাশি পুরো উত্তরবঙ্গের সর্বপ্রথম ও সর্বশ্রেষ্ঠ কলেজ হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করে রাজশাহী কলেজ। রাজশাহী কলেজে স্নাতকোত্তর শ্রেণীর উদ্বোধন করা হয় ১৮৮১ সালে এবং বি.এল কোর্স যোগ করা হয় ১৮৮৩ সালের দিকে।

পরবর্তী সময়ে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন আইন অনুযায়ী কলেজ তার চাহিদা পূরণ করতে না পারার কারণে ১৯০৯ সালে মাস্টার্স কোর্স ও বি.এল কোর্স বাতিল করা হয়।

রাজশাহী কলেজের স্থাপনা ও অবস্থান

রাজশাহী কলেজ ১৮৭৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। যা বাংলাদেশের রাজশাহী বিভাগের রাজশাহী শহরে অবস্থিত। ঢাকা কলেজের ও চট্টগ্রাম কলেজের পরেই রাজশাহী কলেজের অবস্থান। রাজশাহী কলেজ বাংলাদেশের ৩য় প্রাচীনতম কলেজ। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরের ৬৮৫ টি কলেজের মধ্যে রাজশাহী কলেজ অন্যতম একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

রাজশাহী কলেজ হতে সর্বপ্রথম মাস্টার্স ডিগ্রি প্রদান করা শুরু করা হয়। রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলের পাশে অবস্থিত রাজশাহী কলেজ। যা একদম রাজশাহী শহরের কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত। রাজশাহী কলেজের পাশে অবস্থান করার কারণে সে স্কুলটির নাম কলেজিয়েট স্কুল রাখা হয়। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে রাজশাহী কলেজে মাস্টার্স ও সম্মান ডিগ্রি প্রদান করা হয়ে থাকে।

রাজশাহী কলেজে উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের ছাত্র নথিভুক্ত করা বন্ধ করা হয় ১৯৯৬ সালে। তবে সেখানে পুনরায় আবার ভর্তি কার্যক্রম শুরু করে ২০১০-১১ শিক্ষাবর্ষ থেকে।

রাজশাহী কলেজর ভবন সমূহ

রাজশাহী কলেজ যখন প্রতিষ্ঠা করা হয় তখন রাজশাহী কলেজের কোন নিজস্ব ভবন ছিল না। রাজশাহী কলেজের প্রথম ভবন নির্মাণের উদ্যোগ নেয় রাজশাহী অ্যাসোসিয়েশন। ইংরেজ প্রকৌশলীর পরিকল্পনায় ১৮৮৪ সালে ৬১,৭০০ টাকা ব্যয় করে একটি ভবন নির্মিত হয় যা বর্তমানে প্রশাসন ভবন হিসেবে রাজশাহী কলেজে রয়েছে।

রাজশাহী নগরীর প্রধান ও প্রাচীনতম সড়কের পাশে আজকেও মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে রয়েছে লাল বর্ণের সেই দোতলা ভবনটি। যা ব্রিটিশ ভারতীয় উপনিবেশিক স্থাপত্যের একটি দৃষ্টান্ত উদাহরণ বলা যায়। রাজশাহী কলেজে সর্বপ্রথম ১৯৯৪ সালে পি.এন ছাত্রাবাস নির্মাণ করা হয় রাজশাহী অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে।

পরবর্তী সময়ে ১৯০২ সালে পুঠিয়ার রানী হেমন্ত কুমারীর অর্থায়নে হেমন্ত কুমারী হোস্টেল নির্মিত হয়। ইংরেজ আমলের অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ পুরনো বাড়িগুলো হলোঃ প্রাক্তন মুসলিম ছাত্রাবাস, পদার্থবিজ্ঞান ভবন, জীববিজ্ঞান ভবন, রসায়ন ভবন, ফুলার ছাত্রাবাস ইত্যাদি। পরবর্তী সময়ে ১৯৫০ সালের পর যে সকল ভবন নির্মাণ করা হয় সেগুলো হলোঃ অডিটোরিয়াম, লাইব্রেরি ভবন ও কলা ভবন।

আরো একটি বিজ্ঞান ভবন নির্মিত হয়েছে ১৯৯০ সালে। তাছাড়া কলেজ ক্যাম্পাসের মধ্যে অধ্যক্ষ মহোদয়ের বাসভবন ও সাধারন শিক্ষকের বসবাসের জন্য আরো ভবন নির্মাণ করা হয়।

রাজশাহী কলেজের আবাসিক হল

রাজশাহী কলেজে মুসলিম ছাত্রাবাসীর যাত্রা শুরু হয় ১৯২২ সালের দিকে। মোট ৭ টি ভবন রয়েছে ছাত্রাবাসে। ৭ জন বীরশ্রেষ্ঠের নাম অনুসারে সেই ভবন গুলোর নাম রাখা হয়। ৫২ এর ভাষা আন্দোলনের শহীদদের স্মরণে বাংলাদেশের প্রথম শহীদ মিনারটি স্থাপন করা হয় রাজশাহী কলেজের সেই ছাত্রাবাসে।

রাজশাহী কলেজের হিন্দু সম্প্রদায়ের জন্য হিন্দু ছাত্রাবাস রয়েছে যা মহারানী হেমন্ত কুমারী হিন্দু ছাত্রাবাস নামে পরিচিত। যে ছাত্রাবাসটি ১৮৯৯ সালে প্রতিষ্ঠা করা হয়। ছাত্রীদের কষ্ট লাঘবের জন্য ১৯৬৬ সালে রাজশাহী কলেজের অদূরে ছাত্রী নিবাস স্থাপন করা হয়।

পরবর্তী সময়ে পর্যায়ক্রমে ছাত্রীদের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে ছাত্রীদের আবাসনের সমস্যা নিরসনের লক্ষ্যে নিউব্লক, উত্তরা বিল্ডিং, বলাকা ও রহমতুন্নেছা বিল্ডিং তৈরি করা হয়। যেখানে বর্তমান সময়ে কয়েক হাজার ছাত্রীর আবাসনের সুব্যবস্থা রয়েছে।

রাজশাহী কলেজের গ্রন্থাগার

রাজশাহী কলেজ খুব দ্রুত প্রসিদ্ধির অন্যতম কারণ হলো রাজশাহী কলেজের গ্রন্থাগার। যাতে পুরাতন ও সাম্প্রতিক সংস্করণের বই, জার্নাল এবং সাময়ীকের প্রাচুর্য এবং আন্তর্জাতিক খ্যাত মুদ্রিত তথ্যপ্রাপ্তির নির্ভরযোগ্য উৎস। তাছাড়া রাজশাহী কলেজের গ্রন্থাগারে রয়েছে দুর্লভ বই, গ্যাজেট এবং পান্ডুলিপি প্রাচীন নিদর্শন।

২০২৪ সালে কলেজ কর্তৃপক্ষের তথ্যের ভিত্তিতে রাজশাহী কলেজের গ্রন্থাগারে প্রায় ৮১, ৫৪৩ টির অধিক বই রয়েছে। বর্তমানে রাজশাহী কলেজের গ্রন্থাগারটি কলেজ প্রশাসন ভবনের পশ্চিম প্রান্তে অবস্থিত।

রাজশাহী কলেজের অনুষদ ও বিভাগ

বর্তমান সময়ে রাজশাহী কলেজের ৪ অনুষদে ২৪ বিভাগ রয়েছে।
কোন অনুষদের কয়টি বিভাগ রয়েছে তা জানানো হলোঃ
কলা অনুষদ
  • বাংলা বিভাগ
  • ইংরেজি বিভাগ
  • আরবি ও ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ
  • ইতিহাস বিভাগ
  • ইসলামের ইতিহাস বিভাগ
  • দর্শন বিভাগ সংস্কৃত
  • বিভাগ উর্দু বিভাগ
সমাজবিজ্ঞান অনুষদ
  • রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ
  • অর্থনীতি বিভাগ
  • সমাজবিজ্ঞান বিভাগ
  • সমাজকর্ম বিভাগ
বিজ্ঞান অনুষদ
  • পদার্থ বিভাগ
  • রসায়ন বিভাগ
  • গণিত বিভাগ
  • পরিসংখ্যান বিভাগ 
  • উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগ
  • মনোবিজ্ঞান বিভাগ
  • ভূগোল বিভাগ
ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ
  • ফিনান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগ
  • হিসাববিজ্ঞান বিভাগ
  • মার্কেটিং বিভাগ
  • ব্যবস্থাপনা বিভাগ

শেষ কথা

আজকেরই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা আপনাকে জানিয়েছি রাজশাহী কলেজের সকল তথ্য। আমাদেরই আর্টিকেলটি যদি আপনার ভালো লেগে থাকে তবে অবশ্যই এই আর্টিকেলটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন। যেকোনো ধরনের শিক্ষনীয় বিষয় জানতে আমাদের ওয়েবসাইটের সাথেই থাকুন।আমাদের আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url