গ্রীন ভ্যালি রিসোর্টের সকল তথ্য

সাফিনা পার্ক সম্পর্কে জানুনআসসালামু আলাইকুম, সুপ্রিয় পাঠক গ্রীন ভ্যালি রিসোর্টের সকল তথ্য ও গ্রিন ভ্যালি রিসোর্টে যাওয়ার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানার জন্য এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়ুন।কেননা এই আর্টিকেলে আমরা গ্রিন ভ্যালি রিসোর্টের সকল তথ্য জানানোর পাশাপাশি গ্রীন ভ্যালি রিসোর্টে যাওয়ার উপায়, থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা সহ রিসোর্টের মধ্যে কোন টিকিটের মূল্য কত এবং রিসোর্ট কর্তৃপক্ষদের সাথে যোগাযোগ করার মাধ্যম সহ সকল বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছি।

সূচিপত্র: গ্রিন ভ্যালি রিসোর্ট এর সকল তথ্য

গ্রিন ভ্যালি রিসোর্ট

গ্রীন ভ্যালি রিসোর্ট রাজশাহী বিভাগের নাটোর জেলার লালপুর উপজেলার সদর থেকে ২ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত একটি বিনোদন কেন্দ্র। প্রায় ১২৫ বিঘা জায়গার উপর নির্মিত গ্রিন ভ্যালি রিসোর্ট টি সকল বয়সি এবং সকল শ্রেণীর পেশার মানুষের বিনোদনের জায়গা হিসেবে গড়ে তোলা হয়েছে। গ্রিন ভ্যালি রিসোর্ট এর মধ্যে পিকনিক স্পট, শুটিং স্পট, কনসার্ট এন্ড প্লে গ্রাউন্ড সহ সকল ধরনের অনুষ্ঠান পরিচালনার সুব্যবস্থা রয়েছে।

সার্বক্ষণিক বিদ্যুৎ ব্যবস্থা ও নিরাপত্তা সহ গাড়ি রাখার স্থান ও নামাজের সুব্যবস্থা করা হয়েছে। বর্তমান সময়ে গ্রীন ভ্যালি রিসোর্টের প্রায় ৩২ একর জায়গা জুড়ে রয়েছে লেক যা কৃত্রিম সৌন্দর্যের অপরূপ নিদর্শন।

প্রবেশের সময় ও টিকিটের মূল্য

বর্তমান সময়ে জনপ্রতি ৫০ টাকা করে নিয়ে থাকে গ্রীন ভ্যালি রিসোর্টে প্রবেশের জন্য। গ্রিন ভ্যালি রিসোর্ট টি সাধারণত সকাল ৯ টা থেকে শুরু করে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত সকলের জন্য উন্মুক্ত থাকে। (তবে রিসোর্ট খোলার সময় পরিবর্তন করা হয়)। গ্রিন ভ্যালি রিসোর্টে বাইরের কোন খাবার নিয়ে প্রবেশ করতে দেওয়া হয় না। তবে আপনার প্রয়োজনীয় জিনিস সাথে রাখতে পারেন, যেমন প্রয়োজনীয় ঔষধ, পানি সহ অন্যান্য সামগ্রী।

গ্রিন ভ্যালি রিসোর্ট এর কোন জায়গার টিকিটের কত মূল্য তা জানানো হলোঃ
  • গাড়ি পার্কিং ফ্রি = ১০-৩০০ টাকা
  • গ্রিন ভ্যালি রিসোর্টে রাইড রয়েছে ১৬ টি প্রতিটি রাইড এর টিকিটের মূল্য = ৩০- ৬০ টাকা
  • ওয়াটার পার্ক টিকিটের মূল্য = ২৫০ টাকা
  • ওয়াটার পার্ক লকার ফ্রি = ৫০-৫০০ টাকা
গ্রিন ভ্যালি রিসোর্টের বিস্তারিত জানার জন্য যোগাযোগ করুন এই ঠিকানায়ঃ
মোবাইল নাম্বর ০১৭১২-১৫১৩৮৮, ০১৭১২-০৪০৫৭৩ (কালেক্টিং ম্যানেজার)
ফেসবুক পেজঃ https://www.facebook.com/Greenvalleyparkltdlalpur

গ্রিন ভ্যালি রিসোর্টে যাওয়ার উপায়

রাজধানী ঢাকা থেকে বাঘা-ঈশ্বরদী রুটে চলাচলকারী বাসে উঠে প্রথমে আসতে হবে বাঘা নামক স্থানে। তারপর সেখান থেকে সিএনজি বা অটো রিক্সা অথবা ভ্যান গাড়িতে চড়ে যাওয়া যাবে লালপুর গ্রিন ভ্যালি রিসোর্টে। আবার আপনি চাইলে ঢাকার বাইরে থেকেও গ্রিন ভ্যালি রিসোর্টে আসতে পারেন। তার জন্য প্রথমে আসতে হবে নাটোর শহরে এবং সেখান থেকে যেতে হবে লালপুরে।
রাজশাহী থেকেও গ্রিন ভ্যালি রিসোর্টে যাওয়া অনেকটা সহজ। কেননা রাজশাহী থেকে সরাসরি লালপুর পর্যন্ত বাস চলাচল করে। ট্রেনে চড়েও গ্রিন ভ্যালি রিসোর্টে আসা যাবে, তার জন্য প্রথমে আব্দুলপুর জংশনে নামতে হবে এবং তারপর সিএনজি অটো রিক্সা নিয়ে গ্রিন ভ্যালি রিসোর্টে খুব সহজেই যাওয়া যাবে। আব্দুল পুর রেলওয়ে জংশন হতে গ্রীন ভ্যালি রিসোর্ট এর দূর ১২ কিলোমিটার।

গ্রিন ভ্যালি রিসোর্টে থাকা-খাওয়া

বর্তমান সময়ে নাটোরে বেশ ভালো মানের আবাসিক হোটেল গড়ে উঠেছে। আপনি চাইলে সেই সব হোটেলে সিঙ্গেল কিংবা ডাবল কেবিন নিয়ে রাত্রিযাপন করতে পারেন। এছাড়াও পেয়ে যাবেন নাটোর সার্কিট হাউস, নাটোর সদর ডাক বাংলো, হোটেল রাজ, হোটেল প্রিন্স, হোটেল মিল্লাত সহ আরো অনেক মানসম্মত আবাসিক জায়গা।

পাশাপাশি নাটোরে কম খরচে খাবার জন্য ২ টা হোটেলের বেশ সুনাম রয়েছে সেগুলো হলো নয়ন হোটেল (রেলওয়ে স্টেশনের পাশে) ও পচুর হোটেল। তাছাড়াও ভিআইপি মানের অনেক ৫ তারকা মানের হোটেল গড়ে তোলা হয়েছে নাটোরে। আপনি চাইলে সেখান থেকেও খাবার নিতে পারেন। নাটোরের উল্লেখযোগ্য খাবারের মধ্যে রয়েছে, চলনবিল এবং রানী ভবানীর সুস্বাদু মাছ ও নাটোরের বিখ্যাত কাঁচাগোল্লা। আপনি চাইলে এগুলো খাওয়ার পাশাপাশি বন্ধু-বান্ধব বা পরিবারের জন্য পার্সেল করে নিয়ে যেতে পারেন।

শেষ কথা

প্রিয় পাঠক, আজকের আর্টিকেলে আমরা গ্রিন ভ্যালি রিসোর্টের সকল তথ্য আপনাকে জানিয়েছি। আমাদের এই আর্টিকেল ভালো লেগে থাকলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন। যে কোন শিক্ষণীয় বিষয় জানতে আমাদের ওয়েবসাইটের সাথেই থাকুন। আমাদের আর্টিকেলটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url