বগুড়া জেলার বিখ্যাত ব্যক্তিদের সম্পর্কে জানুন

সিরাজগঞ্জ জেলা সম্পর্কে জানুনআসসালামু আলাইকুম, সুপ্রিয় পাঠক বগুড়া জেলার বিখ্যাত ব্যক্তিদের সম্পর্কে জানুন ও বগুড়া নামকরন সম্পর্কে জানতে হলে আমাদের এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ মনোযোগ দিয়ে পড়ুন।
বগুড়া জেলার বিখ্যাত ব্যক্তিদের সম্পর্কে জানুন
এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে আমরা জানানোর চেষ্টা করেছি যে বগুড়া নামকরণ কিভাবে করা হয় বগুড়ার বিশেষ ব্যক্তিত্ব কারা বগুড়ার ইতিহাস সহ বগুড়া জেলার সবকিছু।
সূচিপত্রঃ বগুড়া জেলার বিখ্যাত ব্যক্তিদের সম্পর্কে জানুন

ভূমিকা

আজকেরে আর্টিকেলে আমরা জানানোর চেষ্টা করেছি যে বগুড়া জেলার বিখ্যাত ব্যক্তি কারা, বগুড়া কিভাবে নামকরণ করা হয়, বগুড়া জেলার অবস্থান ও আয়তন, বগুড়া জেলার ইতিহাস, বগুড়াতে কয়টি উপজেলা, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে, বগুড়ার অর্থনীতি ও শিক্ষা ব্যবস্থা কেমন ঐতিহাসিক স্থান কোথায় সহ বগুড়া জেলার সব কিছু। 

বগুড়া নামকরন

বগুড়া জেলা বাংলাদেশের উত্তর অঞ্চলের রাজশাহী বিভাগের একটি প্রশাসনিক অঞ্চল। যা বাংলাদেশের একটি এ শ্রেণীভুক্ত জেলা হিসেবে অধিভুক্ত। বাংলার একজন বিখ্যাত স্বাধীন সুলতান নাসির উদ্দিন বুগরা খানের নাম অনুসারে বগুড়া জেলার নামকরণ করা হয়। তবে মৌর্য যুগে এটি পুন্ড বর্ধন নামে পরিচিত ছিল।

বগুড়া জেলার অবস্থান ও আয়তন

বগুড়া বাংলাদেশের উত্তর অঞ্চলের রাজশাহী বিভাগে অবস্থিত একটি জেলা। বগুড়াকে বলা হয় উত্তরবঙ্গের প্রবেশদ্বার। বগুড়া জেলার উত্তরে গাইবান্ধাজয়পুরহাট জেলা, দক্ষিণে সিরাজগঞ্জনাটোর জেলা, পূর্বে যমুনা নদী ও জামালপুর জেলা, পশ্চিমে নাটোর জেলা নওগাঁ জেলা অবস্থিত। বগুড়া শহর করোতোয়া নদীর কুল ঘেঁষে অবস্থিত।

বগুড়া জেলার আয়তন হলো ২,৮৯৮.৬৮ বর্গ কিলোমিটার।

বগুড়া জেলার ইতিহাস

ইতিহাস থেকে জানা যায় যে বাংলার প্রাচীনতম একটি নগরী হল বগুড়া। মৌর্য যুগের এটি পুন্ড বর্ধন নামে পরিচিত থাকলেও এটি ছিল বরেন্দ্রভূমি নামে খ্যাত অঞ্চলের অংশ এই অঞ্চলটি ৯ থেকে ১২ শতক সেন রাজাদের দ্বারা শাসিত হয়েছিল, পরে ১৩০০ শতকের শুরুতে তা মুসলিম শাসকদের অধীনে চলে আসে। তার পরবর্তীতে প্রায় ১০০ বছর শাসন কার্য চালায় সেন বংশের নৃপতিরা।
এরপর কঠোর আন্দোলনের ফলে তাদেরও শাসনের অবসান ঘটে। তারপর শাসনভার পান গোড়ের বাহাদুর শাহ। ১৮২১ সালে প্রাথমিকভাবে বৃহত্তর বগুড়া জেলা গঠিত হয়েছিল। পরবর্তীতে ১৯৮৩ সালে জয়পুরহাট ও রংপুরের কিছু অঞ্চলকে বাদ দিয়ে বগুড়াকে পূর্ণাঙ্গ জেলা হিসেবে গঠন করা হয়। তবে বৃহত্তর বগুড়ার পৌরসভা গঠন করা হয় ১৮৮৪ সালে। মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় ১৯৭১ সালে বগুড়া ৭ নং সেক্টরের অধীনে ছিল। 

বগুড়া জেলার উপজেলা সমূহ


বগুড়া জেলায় উপজেলা আছে ১২ টি ও থানা আছে ৮ টি

উপজেলা গুলো হলোঃ
  • আদমদিঘী উপজেলা
  • কাহালু উপজেলা
  • গাবতলী উপজেলা
  • দুপচাঁচিয়া উপজেলা
  • ধুনট উপজেলা
  • নন্দীগ্রাম উপজেলা
  • শাজাহানপুর উপজেলা
  • শিবগঞ্জ উপজেলা
  • শেরপুর উপজেলা
  • সোনাতলা উপজেলা
  • সারিয়াকান্দি উপজেলা 
  • বগুড়া সদর উপজেলা
বগুড়া জেলায় সংসদীয় আসন রয়েছে ৭ টি

বগুড়া জেলার পৌরসভা সমূহ


বগুড়া জেলায় মোট পৌরসভা আছে ১১ টি
সেগুলো হলোঃ
  • কাহালু পৌরসভা
  • গাবতলী পৌরসভা
  • তালোড়া পৌরসভা
  • ধুনট পৌরসভা
  • নন্দীগ্রাম পৌরসভা
  • শিবগঞ্জ পৌরসভা
  • শেরপুর পৌরসভা
  • সান্তাহার পৌরসভা
  • সারিয়াকান্দি পৌরসভা
  • সোনাতলা পৌরসভা
  • বগুড়া পৌরসভা

বগুড়া জেলার ইউনিয়ন পরিষদ সমূহ


বগুড়া জেলার ১২ টি উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদের রয়েছে ১০৮ টি। যেখান থেকে সাধারণ মানুষ প্রতিনিয়ত নানা রকমের সুযোগ সুবিধা ভোগ করে থাকেন। তাছাড়াও বগুড়া জেলায় মৌজা রয়েছে ১,৭৫৯টি ও গ্রাম রয়েছে ২,৬৯৫ টি।

কোন উপজেলায় কয়টি ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে তা জানানো হলোঃ
বগুড়া সদর উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে ১১ টি
সেগুলো হলোঃ
  • নামজা ইউনিয়ন পরিষদ
  • লাহিড়ীপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ
  • নুনগোলা ইউনিয়ন পরিষদ
  • গোকুল ইউনিয়ন পরিষদ
  • শিখেরকোলা ইউনিয়ন পরিষদ
  • শাখারিয়া ইউনিয়ন পরিষদ
  • রাজাপুর ইউনিয়ন পরিষদ
  • এরুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদ
  • নিশিন্দারা ইউনিয়ন পরিষদ
  • সাবগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ
  • ফাঁপোর ইউনিয়ন পরিষদ
গাবতলী উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে ১১ টি
সেগুলো হলোঃ
  • দক্ষিণপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ
  • বালিয়াদীঘি ইউনিয়ন পরিষদ
  • নশিপুর ইউনিয়ন পরিষদ 
  • মহিষাবান ইউনিয়ন পরিষদ
  • গাবতলী ইউনিয়ন পরিষদ
  • দুর্গাহাটা ইউনিয়ন পরিষদ
  • নেপালতলি ইউনিয়ন পরিষদ
  • নাড়ুয়ামালা ইউনিয়ন পরিষদ
  • রামেশ্বরপুরইউনিয়ন পরিষদ
  • সোনারায় ইউনিয়ন পরিষদ
  • কাগইল ইউনিয়ন পরিষদ
শেরপুর উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে ১০ টি
সেগুলো হলোঃ
  • শাহেবন্দেগী ইউনিয়ন পরিষদ
  • সীমাবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদ
  • সুঘাট ইউনিয়ন পরিষদ
  • ভবানীপুর ইউনিয়ন পরিষদ
  • বিশালপুর ইউনিয়ন পরিষদ
  • মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদ
  • খানপুর ইউনিয়ন পরিষদ
  • খামারকান্দি ইউনিয়ন পরিষদ
  • গাড়িদহ ইউনিয়ন পরিষদ
  • কুসুম্বি ইউনিয়ন পরিষদ
কাহালু উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে ৯ টি
সেগুলো হলোঃ
  • মালন্জা ইউনিয়ন পরিষদ
  • জামগ্রামইউনিয়ন পরিষদ
  • দুর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদ
  • কাহালু ইউনিয়ন পরিষদ
  • মুরাইল ইউনিয়ন পরিষদ
  • নারহট্ট ইউনিয়ন পরিষদ
  • পাইকড় ইউনিয়ন পরিষদ
  • কালাই ইউনিয়ন পরিষদ
  • বীরকেদার ইউনিয়ন পরিষদ
শাহজাহানপুর উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে ৯ টি
সেগুলো হলোঃ
  • আমরুল ইউনিয়ন পরিষদ
  • চোপিনগর ইউনিয়ন পরিষদ
  • খোট্রাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ
  • গোহাইল ইউনিয়ন পরিষদ
  • খরনা ইউনিয়ন পরিষদ
  • আড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ
  • মাঝিড়া ইউনিয়ন পরিষদ
  • মাদলা ইউনিয়ন পরিষদ
  • আকেশপুর ইউনিয়ন পরিষদ
শিবগঞ্জ উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে ১২ টি
সেগুলো হলোঃ
  • রায়নগর ইউনিয়ন পরিষদ
  • মোকামতলা ইউনিয়ন পরিষদ
  • সৈয়দপুর ইউনিয়ন পরিষদ
  • দেউলি ইউনিয়ন পরিষদ
  • শিবগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ
  • বিহার ইউনিয়ন পরিষদ
  • বুড়িগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ
  • মাঝিহট্ট ইউনিয়ন পরিষদ
  • পিরব ইউনিয়ন পরিষদ
  • আটমুল ইউনিয়ন পরিষদ
  • কিচক ইউনিয়ন পরিষদ
  • ময়দানহাটা ইউনিয়ন পরিষদ
ধুনট উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে ১০ টি
সেগুলো হলোঃ
  • গোপালনগর ইউনিয়ন পরিষদ
  • মাথুরাপুর ইউনিয়ন পরিষদ
  • চৌকিবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদ
  • এলাঙ্গি ইউনিয়ন পরিষদ
  • ধুনট ইউনিয়ন পরিষদ
  • ভান্ডারবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদ
  • গোসাইবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদ
  • চিকাশী ইউনিয়ন পরিষদ
  • কালেরপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ
  • নিমগাছি ইউনিয়ন পরিষদ
নন্দীগ্রাম উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে ৫ টি
সেগুলো হলোঃ
  • ভাটগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ
  • থালতা মাজগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ
  • ভাটরা ইউনিয়ন পরিষদ
  • নন্দীগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ
  • বুরইল ইউনিয়ন পরিষদ 
সোনাতলা উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে ৭ টি
সেগুলো হলোঃ
  • পাকুল্যা ইউনিয়ন পরিষদ
  • তেকানি চুকাইনগর ইউনিয়ন পরিষদ
  • মধুপুর ইউনিয়ন পরিষদ
  • জোড়গাছা ইউনিয়ন পরিষদ
  • দিগদাইড় ইউনিয়ন পরিষদ
  • বালুয়া ইউনিয়ন পরিষদ
  • সোনাতলা ইউনিয়ন পরিষদ
আদমদিঘী উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে ৬ টি
সেগুলো হলোঃ
  • সান্তাহার ইউনিয়ন পরিষদ
  • চাঁপাপুর ইউনিয়ন পরিষদ
  • কুন্দগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ
  • আদমদিঘী ইউনিয়ন পরিষদ
  • নশরতপুর ইউনিয়ন পরিষদ
  • ছাতিয়ান পুর ইউনিয়ন পরিষদ
দুপচাঁচিয়া উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে ৬ টি
সেগুলো হলোঃ
  • তালোড়া ইউনিয়ন পরিষদ
  • গোবিন্দপুর ইউনিয়ন পরিষদ
  • গুনাহার ইউনিয়ন পরিষদ
  • দুপচাঁচিয়া ইউনিয়ন পরিষদ
  • চামরুল ইউনিয়ন পরিষদ
  • জিয়ানগর ইউনিয়ন পরিষদ
সারিয়াকান্দি উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদের রয়েছে ১২ টি
সেগুলো হলোঃ
  • ভেলাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ
  • বোহাইল ইউনিয়ন পরিষদ
  • চন্দনবাইশা ইউনিয়ন পরিষদ
  • কর্নিবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ
  • কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদ
  • ফুলবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ
  • সারিয়াকান্দি ইউনিয়ন পরিষদ
  • কাজলা ইউনিয়ন পরিষদ
  • হাটশেরপুর ইউনিয়ন পরিষদ
  • নারচী ইউনিয়ন পরিষদ
  • কামালপুর ইউনিয়ন পরিষদ
  • চালুয়াবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদ

বগুড়া জেলার শিক্ষা ব্যবস্থা

প্রাচীন আমল থেকেই বগুড়া শিক্ষার দিকে অনেকটা এগিয়ে রয়েছে। কেননা সারা বাংলাদেশের শিক্ষা বিস্তারের মত বগুড়াতেও অনেক শিক্ষার উন্নতি হয়েছে। বগুড়াতে রয়েছে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ, দেশ সেরা বিদ্যাপীঠ সরকারি আজিজুল হক কলেজ, শাহ সুলতান কলেজ, মুজিবুর রহমান মহিলা কলেজ, বগুড়া জেলা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট সহ নানা সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।
বর্তমান সময়ে বগুড়া সরকারি নার্সিং কলেজ সারা বাংলাদেশে একটি স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। 

বগুড়া জেলার অর্থনীতি

বগুড়ার অর্থনীতি মূলত কৃষির ওপর নির্ভরশীল। তবে বগুড়াতে অনেক শিল্প কারখানা রয়েছে। বগুড়া জেলার প্রায় ৮৫% মানুষ কৃষি কাজের সাথে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত। কেননা বগুড়ার মাটি বেশ উর্বর এখানে প্রচুর শস্যের উৎপন্ন হয়। বিগত কয়েক বছরে বগুড়ার মাটিতে লাল মরিচ অনেক রেকর্ড পরিমাণ উৎপাদন করা হয়েছে।
তাছাড়া কাঁচা শাকসবজি, আলু বগুড়াতে রেকর্ড পরিমান উৎপাদন করা হয়। আবার বগুড়ার দই বাংলাদেশের অন্যতম প্রাচীন একটি খাবার, যার সুনাম রয়েছে সমগ্র দেশজুড়ে। সেই দইয়ের ব্যবসার সাথে অনেক মানুষ জড়িত। সরকারের তথ্য মতে বগুড়াতে দই উৎপাদন কাজের সাথে প্রায় ৮% মানুষ জড়িত থাকে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে। এভাবেই বগুড়া জেলার অর্থনীতি সচল অবস্থায় রয়েছে। 

বগুড়া জেলার ঐতিহাসিক স্থান

বগুড়া জেলা প্রাচীন আমল থেকে একটি ঐতিহাসিক নিদর্শন। বর্তমানে বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মানুষ বগুড়ার তে আসে ঘুরে দেখার জন্য। কেননা বগুড়াতে রয়েছে সব প্রাচীন নিদর্শন যেমন, 
  • মহাস্থানগড়
  • বেহুলা লক্ষিন্দর বাসর ঘর
  • খেরুয়া মসজিদ
  • মোহাম্মদ আলী প্রাসাদ জাদুঘর ও পার্ক
  • সৌদিয়া সিটি পার্ক
  • পরশুরাম প্রাসাদ
  • বিখ্যাত আদমের মাজার ও আদম দিঘির বিখ্যাত দিঘী
  • বসু বিহার
  • সাপাহার সাইলো
  • বগুড়া জেলা পার্ক

বগুড়া জেলার বিখ্যাত ব্যক্তিদের সম্পর্কে জানুন 

সময়ের ব্যবধানে বগুড়াতে অনেক জ্ঞানীগুণী ও নামিদামি মানুষের জন্ম হয়েছিল তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বাংলাদেশের সাবেক প্রেসিডেন্ট শহীদ জিয়াউর রহমান, আখতারুজ্জামান ইলিয়াস (বিখ্যাত কথা সাহিত্যিক), শাহাদত আলী আখন্দ (বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ), সুনামধন্য কবি আজিজুল হক, আতাউর রহমান (রাজনীতিবিদ) ও ভাষা সৈনিক গাজীউল হক, বর্তমান সময়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অন্যতম খেলোয়াড় মুশফিকুর রহিম সহ আরো অনেকে।

শেষ কথা

বগুড়া জেলার সব কিছু নিয়ে আজকে আমাদের আর্টিকেলটি তৈরি করা হয়েছে। আপনি আর্টিকেলটি পড়ে যদি উপকৃত হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই এটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন। এ ধরনের শিক্ষনীয় বিষয় জানতে আমাদের ওয়েবসাইটের সাথেই থাকুন। আমাদের আর্টিকেল সম্পূর্ণ পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url