দাঁতের ব্যথা কমানোর ঘরোয়া উপায়

আমাশয় রোগের ঘরোয়া চিকিৎসা - আমাশয় রোগের ঔষধ সম্পর্কে জানুনসুপ্রিয় পাঠক, দাঁতের ব্যথা কমানোর ঘরোয়া উপায় ও দাঁতের পোকা দূর করার ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ মনোযোগ দিয়ে পড়ুন।

দাঁতের ব্যথা কমানোর ঘরোয়া উপায়
আপনার দাঁতের সমস্যার সমাধান করার জন্য ঘরোয়া ভাবে আপনি কোন কোন পদ্ধতি অবলম্বন করতে পারবেন সেই সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে আর্টিকেলে। পাশাপাশি দাঁতের পোকা বের করার গাছ ও দাঁতের ব্যথা কমানোর উপায় সহ দাঁতের সকল তথ্য নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে আর্টিকেলে।
সূচিপত্রঃ দাঁতের ব্যথা কমানোর ঘরোয়া উপায়

দাঁত

দাঁত হলো মেরুদন্ডী প্রাণীদের মুখের ভিতরে অবস্থিত একটি বিশেষ অঙ্গ যা খাদ্য খাওয়ার জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে। পৃথিবীতে অনেক প্রাণী আছে যাদের দেহে দাঁত হচ্ছে একমাত্র কঠিনতম অঙ্গ। দাঁত সাধারণত কয়েক রকমের হয়ে থাকে সেটা বয়সের উপর নির্ভর করে। ছোট শিশু থেকে শুরু করে প্রাপ্তবয়স্ক এবং বৃদ্ধ বয়স পর্যন্ত দাঁত সাধারণত ৫ রকমের হয়।
সেগুলো হলো,
  • কর্তন দাঁত
  • ছেদন দাঁত
  • অগ্রপেষণ দাঁত
  • পেষন দাঁত
  • আক্কেল দাঁত

দাঁতের ব্যথা কমানোর ঘরোয়া উপায়

দাঁতের ব্যথা অত্যন্ত যন্ত্রণাদায়ক হয়ে থাকে কেননা দাঁত ব্যথা করার সময় কোন খাদ্য গ্রহণ করা যায় না ফলে দেহে ক্লান্তি চলে আসে খুব সহজে। পাশাপাশি খুব দ্রুত দাঁতের সমস্যা সমাধান না করলে এক দাঁত থেকে অন্য দাঁতে ব্যথা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তার জন্যই দাঁতের ব্যথার সমস্যা খুব দ্রুত সমাধান করে ফেলা উচিত। তবে আপনি চাইলে কোন ডাক্তারের কাছে না গিয়ে সম্পূর্ণ ঘরোয়া উপায়ে আপনার দাঁতের ব্যথার সমস্যার সমাধান করতে পারবেন। চলুন জেনে নেওয়া যাক দাঁতের ব্যথা কমানোর ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে,
  • লবণ ও গরম পানি
দাঁতের ব্যথা কমানোর ঘরোয়া উপায় এর মধ্যে সবচাইতে কার্যকরী উপায় হচ্ছে লবণ ও গরম পানি দিয়ে কুলকুচি করা। তার জন্য প্রথমে এক গ্লাস সমপরিমাণ পানি হালকা কুসুম গরম করে নিন তারপর এক চা চামচ সমপরিমাণ লবণ দিয়ে কিছুক্ষণ পর ৪-৫ মুখের ভিতর দিয়ে কুলকুচি করুন। ৫-৭ দিন নিয়মিত ব্যবহার করলে দাঁতের যেকোনো ব্যথা ও মারি ফোলা দ্রুত কমে যাবে।
  • রসুন
মানবদেহের যেকোনো ব্যথা নিরাময় করতে পারে অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান যা রসুনে রয়েছে। আপনার দাঁতের ব্যথা দূর করার জন্য রসুনের একটি কোয়া একটি লবঙ্গ এবং সামান্য পরিমাণে একটু লবণ নিয়ে তিনটি উপাদান একসাথে মিশিয়ে ব্যথা আক্রান্ত স্থানে দিনে ২-৩ বার ব্যবহার করুন তবেই দ্রুত ব্যথা থেকে নিরাময় পাবেন।
  • লবঙ্গ তেল
লবঙ্গ তেলে অ্যান্টিসেপটিক এবং অ্যানেস্থেটিক নামক উপাদান রয়েছে যা দাঁতের ব্যথা কমাতে দ্রুত কাজ করে থাকে। তার জন্য তুলার সাহায্যে কয়েক ফোঁটা লবঙ্গ তেল ব্যথা-আক্রান্তস্থানে দিয়ে ১০-১৫ মিনিট ধরে রাখুন। প্রতিদিন ২-৩ বার ব্যবহার করুন তবে দ্রুত ব্যথা নিরাময় হয়ে যাবে।
  • লবণ ও গোল মরিচ
দাঁতের ব্যথা দূর করতে লবণ ও গোলমরিচের ব্যবহার করে দেখতে পারেন। তার জন্য প্রথমে হাফ চা চামচ সমপরিমাণ লবণ নিতে হবে এবং ২-৩ টি গোল মরিচ ভালোভাবে বেটে নিয়ে লবণের সাথে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করতে হবে। তারপর সেটা ব্যথাযুক্ত স্থানে ৩-৫ মিনিট দিয়ে রাখুন তাহলে দেখবেন যে দাঁতের ব্যথা ও দাঁতের গোড়া ফোলা খুব সহজেই দূর হয়ে যাবে।
  • পেঁয়াজের ব্যবহার
দাঁতের ব্যথা কমানোর ঘরোয়া উপায় এর মধ্যে আরও একটি কার্যকরী প্রাকৃতিক উপাদান হলো পেঁয়াজ। পেঁয়াজে থাকা অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল, এবং অ্যান্টিসেপটিক উপাদান মুখের ভিতরে গিয়ে মুখের সকল জীবাণু, ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করার পাশাপাশি দাঁতের ব্যথা ও মাড়ি ফোলা সমস্যার সমাধান করে থাকে।
  • পেয়ারার পাতা
যাদের দাঁতে ব্যাথা অনুভূত হয় তারা নিয়মিত ৩-৫ কচি পেয়ারা পাতা চিবিয়ে খাওয়ার অভ্যাস করতে পারেন। তাতে করে দাঁতের ব্যথা অনেকটা কমে যাবে। পাশাপাশি দাঁতের গোড়া মজবুদ হবে ও দাঁতে কোন প্রকার জীবাণু, ব্যাকটেরিয়া স্পর্শ করতে পারবেনা।
  • দুর্বার ঘাসের রস
দাঁতের ব্যথা কমানোর ঘরোয়া উপায় এর মধ্যে আরও একটি কার্যকরী উপাদান হলো দুর্বার ঘাসের রস। যা ব্যবহার করার ফলে দাঁতের ব্যথা, দাঁতের গোড়া ফোলা, মাড়ির গোড়া দিয়ে রক্ত বা পুঁজ বের হওয়া বন্ধ হয়ে যায়। পাশাপাশি দুর্বার ঘাসের রস নিয়মিত ব্যবহার করলে দাঁত পরিষ্কার থাকে যাতে করে খাদ্য খাওয়ার সময় কোন সমস্যা হয় না।
  • হিমের গুড়া
দাঁতের ব্যথা দ্রুত কমানোর জন্য এক চা চামচ হিমের গুড়ার সাথে সমপরিমাণ লেবুর রস মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে সেটা দাঁতে ব্যবহার করুন। তাহলে দ্রুত ব্যথা কমার পাশাপাশি দাঁতের গোড়া শক্তিশালী হবে ও কোন ব্যাকটেরিয়া বা জীবাণু দাঁতে প্রবেশ করতে পারবে না।
  • হাইড্রোজেন পারোক্সাইড
দাঁতের ব্যথা আক্রান্ত স্থানের ব্যাকটেরিয়া ও জীবাণু ধ্বংস করার জন্য হাইড্রোজেন পারোক্সাইড ব্যবহার করতে পারেন। তার জন্য হাইড্রোজেন পারোক্সাইড ও সমপরিমাণ পানি ভালোভাবে মিশিয়ে মুখের মধ্যে দিয়ে ২০-২৫ সেকেন্ড রাখুন। প্রতিদিন কমপক্ষে দুইবার ব্যবহার করলে মুখের ভেতরের ব্যাকটেরিয়া এবং জীবাণু দ্রুত ধ্বংস করে দাঁতের ব্যথা কমাতে সাহায্য করবে।
  • পেপারমেন্ট টি ব্যাগ
শরীরের যে কোন স্থানের ফোলা ভাব দূর করতে পেপারমেন্ট টি ব্যাগ ব্যবহার করা হয়। দাঁতে ব্যথা হলে বা দাঁতের গোড়া ফুলে উঠলে পেপারমেন্ট টি ব্যাগ ব্যবহার করতে পারেন। তাতে ফোলা জায়গা শীতল হয়ে যাবে এবং ব্যথা দূর হয়ে যাবে।

দাঁতের গর্ত দূর করার ঘরোয়া উপায়

বর্তমান সময়ে প্রায় সকল মানুষের দাঁত ব্যথা করা, মাড়ি ফুলে যাওয়া, মাড়ির গোড়া দিয়ে রক্ত বা পুঁজ বের হওয়া সহজ নানান সমস্যা রয়েছে। তো আজকে আমরা আলোচনা করব দাঁতের গর্ত দূর করার ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে,

নানা রকমের ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণের ফলে দাঁতে গর্ত হয় বা পোকা লাগে। খাবার খাওয়ার পর দাঁতে যে সকল খাদ্য আটকে থাকে সেগুলো যদি সরিয়ে না ফেলা হয় তবে দাঁতে ব্যাকটেরিয়া আক্রমণের আশঙ্কা থেকে যায়। দাঁতের গর্ত দূর করার জন্য খাবারের পর ব্রাশ করার অভ্যাস গড়ে তুলুন। আবার দাঁতে গর্ত হলে বা দাঁতে পোকা লাগলে অবশ্যই ডেন্টাল কেয়ারে গিয়ে সেবা নিবেন তাছাড়া গর্তের স্থানে ছিদ্র হয়ে তীব্র যন্ত্রণার সৃষ্টি হবে।
পাশাপাশি দাঁতে গর্ত হওয়ার সাথে সাথে রুট ক্যানেল বা দাঁতের মুকুট বসিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করবেন। পাশাপাশি খাবারের পর ব্রাশ করবেন এবং যেকোনো কাঁচা ফল খাওয়ার আগে অবশ্যই পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে নেবেন তাহলে দাঁতে ব্যাকটেরিয়া প্রবেশের কোন ভয় থাকবে না।

দাঁতের পোকা দূর করার ঘরোয়া উপায়

যাদের দাঁতে পোকা রয়েছে তারা দাঁতের পোকা বের করার জন্য বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে থাকে কিন্তু কোনোটাতেই আশানুরুপ ভালো ফল পায় না। তার জন্য আজকে আমরা আলোচনা করব দাঁতের পোকা দূর করার ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে। চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে আপনি দাঁতের পোকা ঘরোয়া উপায় দূর করতে পারেন,
  • নিম পাতা
মানুষের দেহের অ্যান্টিবায়োটিক হিসেবে কাজ করে নিমপাতা। সে কারণে দাঁতের পোকা, দাঁতের ব্যথা সারাতে, বিভিন্ন ধরনের ব্যাকটেরিয়া এবং জীবাণু দূর করার জন্য নিমের পাতা ব্যবহার করতে পারেন। তার জন্য ৪-৫ কচি নিমপাতা সংগ্রহ করে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ভালো করে বেটে নিয়ে পেস্ট তৈরি করুন এবং সেটি ব্যথাস্থানে লাগিয়ে রাখুন তাতে করে দাঁতের পোকা বেরিয়ে আসবে এবং দাঁতের ব্যথা খুব দ্রুত নিরাময় হয়ে যাবে।
  • পেয়ারা পাতা
আমাদের দাঁতের ক্যাভিটি দূর করার জন্য অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল বিশেষ ভূমিকা রাখে যা পেয়ারা পাতাতে রয়েছে। সে কারণে ৪-৫ টি কচি পেয়ারা পাতা সংগ্রহের পর ভালো করে বেটে রস বের করে নিয়ে হালকা গরম পানির সাথে মিশিয়ে কুলকুচি করুন তবে খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে দাঁতের ক্যাভিটি দূর হয়ে যাবে পাশাপাশি ব্যথা কমে যাবে এবং মাড়ির গোড়া দিয়ে রক্ত বা পুঁজ বের হওয়ার সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।
  • ডিমের খোসা
ডিমের খোসাতে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম এবং খনিজ পদার্থ রয়েছে যা দাঁতের ভেতরের পোকা দূর করে থাকে শক্ত এবং মজবুত করে। তার জন্য এক গ্লাস পানিতে ডিমের খোসা সিদ্ধ করে নিয়ে গুড়ো তৈরি করতে হবে তার সাথে সামান্য পরিমাণে বেকিং সোডা মেশাতে হবে এবং সেই পাউডার দিয়ে নিয়মিত দাঁত ব্রাশ করলে দাঁতের পোকা দূর হয় এবং মুখের মধ্যে কোন ব্যাকটেরিয়া ও জীবাণু প্রবেশ করতে পারে না।
  • লেবু
দাঁতের পোকা দূর করার ঘরোয়া উপায় এর মধ্যে সবচাইতে সহজ উপায় হলো লেবুর ব্যবহার করা। কেননা মানুষের শরীরের বিভিন্ন ব্যাকটেরিয়া, জীবাণু ও ভাইরাস ধ্বংস করতে সাইট্রিক এসিডের প্রয়োজন হয় যা লেবু থেকে পাওয়া যায়। যাদের দাঁতের ক্যাভিটির সমস্যা রয়েছে তারা লেবু চিবিয়ে খেতে পারেন তাতে করে মুখের মধ্যে ব্যাকটেরিয়া প্রবেশ করতে পারবে না এবং দাঁত শক্ত ও মজবুত হবে।
  • নারিকেল তেল
দাঁতের পোকা দূর করার ঘরোয়া উপায় এর মধ্যে নারিকেল তেলের ব্যবহার করা অত্যন্ত সহজ একটা উপায়। তার জন্য একটু তুলার সাহায্যে কয়েক ফোটা নারিকেল তেল ব্যাথার স্থানে ৮-১০ সেকেন্ড ধরে রাখুন তাতে করেই দাঁতের পোকা বেরিয়ে আসবে এবং দাঁতের গোড়া শক্ত ও মজবুত হবে। পাশাপাশি দাঁতের গোড়া দিয়ে রক্ত বা পুঁজ বের হওয়া সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

দাঁতের ব্যথা কমানোর উপায়

দাঁতের ব্যথা কমানোর উপায় সম্পর্কে আমরা সকলেই কমবেশি জানতে চাই কেননা বর্তমান সময়ে প্রায় সকল মানুষেরই দাঁতে ব্যথা করার সমস্যা দেখা যায়। কোন কোন উপকরণ ব্যবহার করে আপনি দাঁতের ব্যথা কমাতে পারবেন সেই সম্পর্কে জানানো হলো,
  • লবণ ও হালকা গরম পানির কোলকুচি করে
  • হাইড্রোজেন পারোক্সাইড ব্যবহার করে
  • পেঁয়াজ ব্যবহার করে
  • লবণ ও গোলমরিচের পেস্ট ব্যবহার করে
  • কচি পেয়ারা পাতা ব্যবহার করে
  • দুর্বার ঘাসের রস ব্যবহার করে
  • আইস কিউবা ব্যবহার করে
  • নারিকেল তেল ব্যবহার করে
  • ভিটামিন ডি ব্যবহার করে
  • ডিমের খোসা ব্যবহার করে
  • লেবু ব্যবহার করে
  • নিম পাতা ব্যবহার করে
  • লিকোরিস রোড ব্যবহার করে
  • পেপারমেন্ট টি ব্যাগ ব্যবহার করে
  • রসুন ব্যবহার করে
  • লবঙ্গের তেল ব্যবহার করে
উপরে বর্ণিত সকল উপাদান গুলোই আপনার দাঁতের ব্যথা কমাতে সাহায্য করবে তাছাড়া দাঁতের গোড়া শক্ত ও মজবুত করা এবং দাঁতকে ব্যাকটেরিয়া ও জীবাণুর হাত থেকে রক্ষা করার কাজ করবে। যাদের দাঁতের সমস্যা রয়েছে তারা ঘরোয়া উপায়ে চিকিৎসা করে দেখতে পারেন না হলে অবশ্যই রেজিস্টার্ড ডেন্টাল ডক্টরের পরামর্শ নিবেন।

দাঁতের পোকা বের করার গাছ

যাদের দাঁতে পোকার সমস্যা রয়েছে তারা চাইলে ভেষজ উপায় অবলম্বন করে দাঁতের পোকা বের করতে পারেন। আসুন জেনে নেওয়া যাক দাঁতের পোকা বের করার গাছ সম্পর্কে,
  • আকন্দ ফুলের গাছ
দাঁতের ব্যথা হলে বা দাঁতে পোকা দেখা গেলে আকন্দ ফুলের গাছ ব্যবহার করতে পারেন। তার জন্য আকন্দ গাছের রস তুলার সাথে ভিজিয়ে ব্যথাযুক্ত স্থানে চেপে ধরে রাখুন তাহলে খুব সহজেই ব্যথা নিরাময় হয়ে যাবে এবং দাঁতের পোকা বের হয়ে আসবে। পাশাপাশি যাদের পা মচকে যাওয়ার ব্যথা রয়েছে তারাও আকন্দ ফুলের গাছ ব্যবহার করতে পারেন।
  • চিচ্চিরে গাছ বা আপাঙ্গাং গাছ
দাঁতের মাড়ি ফুলে যাওয়া, মাড়ির গোড়া দিয়ে রক্ত বা পুঁজ বের হওয়া, দাঁতে পোকা লাগা, দাঁতের গোড়া নড়বড় হওয়ার মতো নানান সমস্যার সমাধান করার জন্য চিচ্চিরে গাছ বা আপাঙ্গাং গাছ ব্যবহার করতে পারেন। প্রতি সপ্তাহে ৪-৫ দিন চিচ্চিরে গাছ বা আপাঙ্গাং গাছের শিকড় দিয়ে দাঁত ব্রাশ করলে অনেক উপকার পাওয়া যায়।

শেষ কথা

সুপ্রিয় পাঠক আর.বি.আর ব্লগের এই আর্টিকেলে দাঁতের ব্যথা কমানোর ঘরোয়া উপায় ও দাঁতের পোকা দূর করার ঘরোয়া উপায় সহ দাঁতের যত্নে আপনি কি কি করতে পারবেন সেই সকল তথ্য নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। আর্টিকেলটি ভালো লেগে থাকলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন। যে কোন বিষয়ের সঠিক তথ্য সবার আগে জানতে আর.বি.আর ব্লগের গুগল নিউজে ফলো দিয়ে রাখুন। আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url